1. me@dailyjagrotodesh.com : দৈনিক জাগ্রতদেশ : dailyjagrotodesh.com dailyjagrotodesh.com
  2. dailyjagrotodesh@gmail.com : দৈনিক জাগ্রতদেশ :
শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ১২:৪৪ অপরাহ্ন
সর্বশেষ :
জগন্নাথপুরে ঝুকিতে জগদীশপুর গ্রামের খালের সেতু ঘটতে পারে দুর্ঘটনা দুুমকিতে ইউপি ভবন নির্মাণের দাবিতে মানববন্ধন।  মসজিদ প্লাবিত হওয়ায় নামাজ আদায় করতে পারছেননা মুসল্লীরা জগন্নাথপুর থানা পুলিশের উদ্যোগে ঈদ উল আযহা উপলক্ষে ঈদ সামগ্রী বিতরন বিএনপিতে নতুন পদ পেলেন ৩৯ জন দুমকিতে ঈদ উল আযহা ঘনিয়ে আসায় জমতে,শুরু করেছে পশুর হাট বাড়ছে ক্রেতা সমাগম। ঈদের দিন ঘনিয়ে আসার সাথে সাথে জমতে শুরু করেছে পশুর হাট বাড়ছে ক্রেতা সমাগম জগন্নাথপুর সরকারী বালিকা বিদ্যালয়ের পুরাতন মালামাল গোপনে বিক্রি, প্রশাসনের হস্তক্ষেপ  বজ্রপাত আতঙ্কে গ্রামীন জনজীবনে ঝুকি উপজেলা পরিষদ নির্বাচন দুমকিতে কাওসার, আমিন হাওলাদার কাপ পিরিচ’র বিজয়,, অবাধ, সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন।
বিঙ্গাপন:
তরুণ উদ্যোক্তাদের জন্য সুখবর, সারাদেশে ডিলার নিয়োগ দিচ্ছে মিয়া কেমিক্যাল কোম্পানি!!! সারাদেশের প্রতিটি জেলা উপজেলায় শূন্যস্থানে সংবাদ প্রতিনিধি সাংবাদিক নিয়োগ চলছে আগ্রহীরা পোস্টের নাম উল্লেখ করে সিভি পাঠান dailyjagrotodesh@gmail.com

পাশাপাশি মসজিদ মন্দির নির্বিঘ্নে চলছে নামাজ-পুজা

  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর, ২০২৩

মোঃ মুকিম উদ্দিন জগন্নাথপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ 

 এক দিকে মসজিদ ও অপর দিকে মন্দির। মিলেমিশে মুসলিম সম্প্রদায়ের ইবাদত আর হিন্দু সম্প্রদায়ের উপাসনা চলছে। সময়মতো হচ্ছে আজান ও নামাজ, নিয়ম করে চলে পূজাঅর্চনাও। এক পাশে চলে জিকির অন্য পাশে উলুধ্বনি।

 

এভাবে, ধর্মীয় সম্প্রীতির দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে পৃথক দুটি ধর্মীয় উপাসনালয়। ধর্মীয় সম্প্রীতির এমন উজ্জ্বল নিদর্শন রয়েছে সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলা সদরের শ্রী শ্রী জগন্নাথ জিউর আখড়া (উপজেলা কেন্দ্রীয় মন্দির) ও আল মদিনা জামে মসজিদ।

 খোজ নিয়ে জানা যায়, উপজেলা পৌরশহরের জগন্নাথপুর এলাকায় প্রাচীনতম হিন্দু সম্প্রদায়ের কেন্দ্রীয় শ্রী শ্রী জগন্নাথ জিউর আখড়া স্থাপিত হয়েছে। এ মন্দিরে বিভিন্ন পুজার মন্ডপ তৈরী করে ধর্মীয় কার্যক্রম পালন করে আসছেন হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন। মন্দিরের পাশেই প্রায় ৫ বছর আগে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী জুনেদ মিয়ার অর্থায়নে আল মদিনা জামে মসজিদ নামে একটি ধর্মীয় উপাসনায় স্থাপন করা হয়।

 

বিগত ২০অক্টোবর শুক্রবার থেকে হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব সারদীয় দুর্গাৎসব শুরু হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার ছিল পুজার বিজয়াদশমী। এদিন দর্শনার্থী ও ভক্তদের ঢল নামে মন্ডপে মন্ডপে। জগন্নাথপুরে কেন্দ্রীয় পুজামন্ডপে এমন দৃশ্য দেখা গেছে। মন্দিরের গেইট এলাকায় কয়েকজন পুলিশ ও আনসার সদস্যদের দেখা গেছে।

শ্রী শ্রী জগন্নাথ জিউর আখড়ার সভাপতি শুধাংসু শেখর রায় বাচ্চু বলেন, শান্তিপূর্ণভাবে আমরা হিন্দু-মুসলিম একই পরিবারের সদস্য হিসেবে বসবাস করে আসছি। এলাকায় কখনো ধর্ম নিয়ে কোনও বিরোধ হয়নি। এলাকার মানুষ মনে প্রাণে অসাম্প্রদায়িক। প্রত্যেকেই নিজ নিজ ধর্ম পালনের পাশাপাশি অন্য ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।

জগন্নাথ জিউর আখড়ার পূজা কমিটির সভাপতি বিভাষ দে বলেন, বাপ দাদা যেভাবে ধর্মীয় সকল অনুষ্ঠান কার্যক্রম পরিচালনা করে এসেছেন। আমরা একইভাবে উৎসব উদ্দিপনার মধ্যে দিয়ে ধমীয় উৎসব করে আসছি। আমরা হিন্দু-মুসলিম একে অপরের সঙ্গে সমাজবদ্ধভাবে বসবাস করে আসছি। আমাদের বৃহৎ পুজায় অনেক মুসলিম স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে কাজ করেন। মুসলমাদের নামাজের সময় আমাদের অনুষ্ঠান আমরা বন্ধ রাখি। নামাজ শেষ হলে আবার অনুষ্ঠান শুরু হয়। এতে করে কারো কোনো সমস্যা হয়না।

 

আল মদিনা জামে মসজিদের মোয়াজ্জিন হাফেজ আজিজুর রহমান বলেন, পাশাপাশি মসজিদ ও মন্দির স্থাপিত হলেও আমরা আমাদের ধর্ম পালন করছি। তারা তাদের ধর্ম পালন করছেন। ইসলামে সকল ধর্মকে সম্মান করার নির্দেশনা রয়েছে। নামাজের সময় পুজার কার্যক্রম বন্ধ থাকে। এতে আমাদের কোন সমস্যা হয় না।

জগন্নাথপুর গ্রামের একাধিক লোকজন বলেন, শান্তিপূর্ণভাবে আমরা হিন্দু-মুসলিম একই পরিবারের সদস্য হিসেবে বসবাস করে আসছি। এলাকায় কখনো ধর্ম নিয়ে কোনও বিরোধ হয়নি। এলাকার মানুষ মনে প্রাণে অসাম্প্রদায়িক। প্রত্যেকেই নিজ নিজ ধর্ম পালনের পাশাপাশি অন্য ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।

 

আল মদিনা জামে মসজিদের মুসল্লীগন বলেন, মসজিদ কমিটির পক্ষ থেকে মন্দির কমিটিকে নামাজের সময়সূচী দেওয়া হয়েছে। নামাজের সময় মন্দির কমিটি তাদের কার্যক্রম সীমিত রাখে। নামাজ শেষ হলে স্বাভাবিক নিয়মেই পূজা-অর্চনা চলে। এ নিয়ে কোনও সংঘাত হয়নি। আমরা সবাই মিলেমিশে একসঙ্গেই থাকতে চাই।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক জাগ্রতদেশ ২০২৩-২০২৪
Theme Customized By BreakingNews