1. me@dailyjagrotodesh.com : দৈনিক জাগ্রতদেশ : dailyjagrotodesh.com dailyjagrotodesh.com
  2. dailyjagrotodesh@gmail.com : দৈনিক জাগ্রতদেশ :
শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১০:২৮ অপরাহ্ন
সর্বশেষ :
জগন্নাথপুর থানা পুলিশের উদ্যোগে ঈদ উল আযহা উপলক্ষে ঈদ সামগ্রী বিতরন বিএনপিতে নতুন পদ পেলেন ৩৯ জন দুমকিতে ঈদ উল আযহা ঘনিয়ে আসায় জমতে,শুরু করেছে পশুর হাট বাড়ছে ক্রেতা সমাগম। ঈদের দিন ঘনিয়ে আসার সাথে সাথে জমতে শুরু করেছে পশুর হাট বাড়ছে ক্রেতা সমাগম জগন্নাথপুর সরকারী বালিকা বিদ্যালয়ের পুরাতন মালামাল গোপনে বিক্রি, প্রশাসনের হস্তক্ষেপ  বজ্রপাত আতঙ্কে গ্রামীন জনজীবনে ঝুকি উপজেলা পরিষদ নির্বাচন দুমকিতে কাওসার, আমিন হাওলাদার কাপ পিরিচ’র বিজয়,, অবাধ, সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন। দুমকিতে মুজিব বর্ষের ঘর পেলো,ভূমিহীন-গৃহহীন ৩০ পরিবার। রাজশাহীর কাঁকন হাট পৌর সভায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচন পরবর্তী আওয়ামী লীগের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত পটুয়াখালী সদর উপজেলা নির্বাচনে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে সর্বোচ্চ ভোটে বিজয়ী হয়েছেন কামরুননাহার শিমুল। 
বিঙ্গাপন:
তরুণ উদ্যোক্তাদের জন্য সুখবর, সারাদেশে ডিলার নিয়োগ দিচ্ছে মিয়া কেমিক্যাল কোম্পানি!!! সারাদেশের প্রতিটি জেলা উপজেলায় শূন্যস্থানে সংবাদ প্রতিনিধি সাংবাদিক নিয়োগ চলছে আগ্রহীরা পোস্টের নাম উল্লেখ করে সিভি পাঠান dailyjagrotodesh@gmail.com

পড়ালেখা করে বালক ও বালিকা উভয় তারপরেও নাম রয়েছে পোরশা সরকারি প্রাথমিক বালিকা বিদ্যালয়

  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ২৯ আগস্ট, ২০২৩

সুকুমার ঋষি, পোরশা (নওগাঁ) প্রতিনিধি: 

বালক-বালিকা উভয়ে পড়ালেখা করলেও নাম দেওয়া হয়েছে পোরশা সরকারি প্রাথমিক বালিকা বিদ্যালয়। কয়েকজন গণ্যমান্য ব্যক্তি একত্রে নওগাঁর পোরশার প্রাণকেন্দ্র মিনা বাজারের পাশে ১৯৭২ সালে স্থাপন করেন এই বে-সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। প্রথম অবস্থায় এটি একটি বালিকাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসাবে আতœ প্রকাশ করলেও পরবর্তীতে ১৯৯১ সালে আবারও বে-সরকারি প্রাথমিক বালিকা বিদ্যালয় হিসাবে এতে বালক-বালিকা উভয়ে পড়ালেখা আরম্ভ করে। একই বছর শিক্ষা অধিদপ্তর রেজিস্ট্রেশন প্রদান করে এর নাম হয় পোরশা রেজিঃ প্রাথমিক বালিকা বিদ্যালয়। বর্তমান সরকার ২০১৩ সালে দেশের সকল রেজিঃ প্রাথমিক বিদ্যালয়কে সরকারি করণ করলে এই প্রতিষ্ঠানের নাম প্রাথমিক বালিকা বিদ্যালয় হিসাবে থেকে যায়। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটিতে বালক-বালিকা উভয়ে পড়ালেখা করছে। যেহেতু বালকরাও পড়ালেখা করছে সেহেতু বিদ্যালয়ের নামের সাথে বালিকা শব্দটি বাদ দেওয়া দরকার বলে অনেকে মনে করছেন। এ বিষয়ে পুরইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাসুদ শাহ্ জানান, দেশের কোথাও বালিকা প্রাথমিক বিদ্যালয় নেই। এই প্রতিষ্ঠানটির নাম আগে থেকেই বালিকা বিদ্যালয় হিসাবে আছে। এটি একটি দৃষ্টিকটু মনে হচ্ছে। এর পরিবর্তন হওয়া দরকার। সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শহিদুল্লাহ্ মিয়া জানান, বিদ্যালয়টি প্রথম থেকেই বালিকা বিদ্যালয় হিসাবে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। পরবর্তীতে বালিকা শব্দটি আর সংশোধন করা হয়নি। তবে প্রতিষ্ঠানটির নাম পরিবর্তনের জন্য ম্যানেজিং কমিটির রেজুলেশন উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা বরাবর পাঠানো হবে বলে তিনি জানান। সংশ্লিষ্ট ক্লাস্টারে দায়িত্বে থাকা সহকারি উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুর রহমান জানান, যেহেতু প্রতিষ্ঠানটিতে বালক-বালিকা উভই পড়ালেখা করে, সেহেতু বালিকা শব্দটি বাদ অথবা নাম পরিবর্তন করা প্রয়োজন। কিন্তু সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষককে এসংক্রান্ত রেজুলেশন পাঠানোর জন্য বারবার বলা হলেও তিনি তা করেননি। তবে এবিষয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান। এবিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ শাহ্ মঞ্জুর মোরশেদ চৌধুরী জানান, বিদ্যালয়টিতে ছেলে-মেয়ে শিশু উভয়ে পড়ালেখা করে। সেখানে প্রতিষ্ঠানটির নামের মাঝে বালিকা শব্দটি খুব ভাল হয়না। এছাড়াও তার জানামতে দেশের কোথাও বালিকা শব্দটি দিয়ে কোন প্রাথমিক বিদ্যালয় আছে বলে তার জানা নেই। একারনে উপজেলা শিক্ষা কমিটির সভায় বিদ্যালয়টির নাম বীর মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ বশিরুল হক শাহ্ চৌধুরী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় করনের জন্য সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। হয়তোবা খুব শিগ্রই নামটি পরিবর্তনের জন্য কতৃপক্ষ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে তিনি আশা প্রকাশ করেছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক জাগ্রতদেশ ২০২৩-২০২৪
Theme Customized By BreakingNews