1. me@dailyjagrotodesh.com : দৈনিক জাগ্রতদেশ : dailyjagrotodesh.com dailyjagrotodesh.com
  2. dailyjagrotodesh@gmail.com : দৈনিক জাগ্রতদেশ :
মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ০৫:৩৩ অপরাহ্ন
সর্বশেষ :
জগন্নাথপুর থানা পুলিশের উদ্যোগে ঈদ উল আযহা উপলক্ষে ঈদ সামগ্রী বিতরন বিএনপিতে নতুন পদ পেলেন ৩৯ জন দুমকিতে ঈদ উল আযহা ঘনিয়ে আসায় জমতে,শুরু করেছে পশুর হাট বাড়ছে ক্রেতা সমাগম। ঈদের দিন ঘনিয়ে আসার সাথে সাথে জমতে শুরু করেছে পশুর হাট বাড়ছে ক্রেতা সমাগম জগন্নাথপুর সরকারী বালিকা বিদ্যালয়ের পুরাতন মালামাল গোপনে বিক্রি, প্রশাসনের হস্তক্ষেপ  বজ্রপাত আতঙ্কে গ্রামীন জনজীবনে ঝুকি উপজেলা পরিষদ নির্বাচন দুমকিতে কাওসার, আমিন হাওলাদার কাপ পিরিচ’র বিজয়,, অবাধ, সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন। দুমকিতে মুজিব বর্ষের ঘর পেলো,ভূমিহীন-গৃহহীন ৩০ পরিবার। রাজশাহীর কাঁকন হাট পৌর সভায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচন পরবর্তী আওয়ামী লীগের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত পটুয়াখালী সদর উপজেলা নির্বাচনে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে সর্বোচ্চ ভোটে বিজয়ী হয়েছেন কামরুননাহার শিমুল। 
বিঙ্গাপন:
তরুণ উদ্যোক্তাদের জন্য সুখবর, সারাদেশে ডিলার নিয়োগ দিচ্ছে মিয়া কেমিক্যাল কোম্পানি!!! সারাদেশের প্রতিটি জেলা উপজেলায় শূন্যস্থানে সংবাদ প্রতিনিধি সাংবাদিক নিয়োগ চলছে আগ্রহীরা পোস্টের নাম উল্লেখ করে সিভি পাঠান dailyjagrotodesh@gmail.com

ছাতকে সদর ইউনিয়ন ভুমি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অনিয়ম-দূর্ণীতির অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগীরা 

  • প্রকাশিত: বুধবার, ২৬ জুলাই, ২০২৩

সেলিম মাহবুব, সুনামগঞ্জ: ছাতকে অনিয়ম ও দূর্ণীতির অভিযোগ উঠেছে এক ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে। ভূমি উন্নয়ন কর আদায়, নামজারী আবেদন, ভূমি বন্দোবস্থসহ বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বন্দোবস্থ তদন্ত রিপোর্ট ও বাজার ভিটের লাইসেন্স প্রদানে বিপুল পরিমাণ অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ ভুক্তভোগিদের। ছাতকের ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা রমেন্দ্র তালুকদার উৎকোচ ছাড়া কোন কাজই করেনি এমন অভিযোগ রয়েছে। একাধিক ভুক্তভোগি জানান, বাজার ভিট সহ লাইসেন্স প্রথা বা বিভিন্ন ভাবে দখলিয় সরকারি ভূমির উন্নয়ন কর হিসেবে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে আদায় করা হয় মোটা অংকের টাকা। আর আদায় করা এসব টাকা নাম মাত্র সরকারি কোষাগারে জমা দিয়ে শতকরা ৯০ টাকাই পকেটস্থ করছেন তিনি। বাজার ভিটের প্রতি মালিকের কাছ থেকে ৪০ থেকে ৫০ হাজার টাকা আদায় করে সরকারি কোষাগারে জমা হচ্ছে ৪ থেকে ৫ হাজার টাকা। ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা (তহশীলদার) রমেন্দ্র তালুকদার এখানে যোগ দানের পর থেকেই এ কর্মকান্ড চলছে বলে ভুক্তভোগিরা জানান। আজাদ মিয়া, শানুর আলী, গোলাম মোস্তফা, আরব আলী সহ ভুক্তভোগীরা জানান, মালিকানা জমির উন্নয়ন কর দিতে গিয়েও বিপাকে পড়তে হয়েছে তাদের। নানা জটিলতা দেখিয়ে মাসের পর মাস অফিসে ঘুরানোর পর ভূমি কর্মকর্তাকে উৎকোচ দিয়ে ভূমি উন্নয়ন কর পরিশোধ করতে হচ্ছে তাদের। অনাকাংখিত ভূমি উন্নয়ন কর পরিশোধে জটিলতা সৃষ্টি করায় জমি বিক্রি করেও শত-শত লোক ভূমি রেজিষ্ট্রি করতে পারছেন না। এতে মানুষের বিদেশ গমন সহ অনেক জটিলতায় পড়তে হয়েছে ভূমি মালিকদের। নির্ধারিত এক বা একাধিক কোন দাগের উন্নয়ন কর না নিয়ে পুরো খতিয়ানের উন্নয়ন কর দিতে দাবি করা হচ্ছে। বিভিন্ন অজুহাতে জটিলতার সৃষ্টি করে ভূমি মালিকদের হয়রানির ফাঁদে ফেলে অবৈধ ভাবে টাকা আদায় করে নেয়া হচ্ছে। আদায়কৃত টাকার ক্ষুদ্র অংশ রশিদে লিখে ভূমি মালিকদের হাতে রশিদ ধরিয় দেয়া হয়। ঝামেলা এড়াতে অনেক ভূমি মালিককে তা নিরবে মেনে নিতে হচ্ছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ভুক্তভোগী জানান, সহকারী কমিশনার কার্যালয় থেকে তদন্তের জন্য প্রেরিত, রিভিউ, নামজারী, নামখারিজ বিষয়ের ফাইল টাকা ছাড়া নড়াচড়াও করেন না এ ভূমি কর্মকর্তা। আর্থিক চুক্তি হলেই তিনি কাজ করেন। অন্যতায় মাসের পর মাস অফিসে ধর্ণা দিতে হয় ভুক্তভোগিদের। এছাড়া উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় সরকারি ঘর পাইয়ে দেয়ার নামে স্থানীয় এক দালালের মাধ্যমে বেশ কয়েক জন নীরিহ-অসহায় লোকের কাছ থেকে টাকা নেয়ারও অভিযোগ উঠেছে এ ভূমি কর্মকর্তা রমেন্দ্র তালুকদারের বিরুদ্ধে। এ ব্যাপারে ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা রমেন্দ্র তালুকদার তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, তার উপর অর্পিত কাজ তিনি সরকারি নিয়ম-নীতির মধ্যেই করে যাচ্ছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক জাগ্রতদেশ ২০২৩-২০২৪
Theme Customized By BreakingNews